মানুষকে কেউ কখনও করনা কো নিন্দা

যদিও সে হয় কাল করনা কো ঘৃণা ।

খোদাতাআলা করেছে সৃষ্টি একই মাটি দিয়া

একই মাটি খাবে তোকে কি করবি সেথায় গিয়া ?

জন্ম হয়েছিল তোর নিষ্পাপ হয়ে

শত পাপ হইল দুনিয়াতে এসে ।

অর্থ সম্পদ সবই হলো খোদাতালার দান

তার জন্য কি একবারও তুই করেছিলি পণ ?

আজকে রাজা, কালকে ফকির হতেও পার ভাই

খোদাতাআলা নিয়ে গেলে কিছুই করার নাই ।

তবে কেনরে তোর হৃদয়ে এত অহংকার ?

যখন তোর থাকবেনা কিছু তখন দেখবি অন্ধকার ।

মুখটা তোর করছে ঝলমল, শরীরে বইছে আলো

আমরা না হয় বাইরে কাল হৃদয়ে বইছে তবুও আলো।

দেহটা যার সুদীর্ঘাকার তার দিকে দেও দৃষ্টি

আমরা না হয় তোর মত নয় তবুও খোদা তাআলার সৃষ্টি ।

সুখ দুঃখ নিয়েই জীবন সবই মানুষের ভাগ্য

টাকা – পয়সা সবই পাবি যদি হয় সে যোগ্য ।

কত টাকা কত পয়সা করবি জীবনে ভোগ

হৃদয়টা যদি তার হয়রে কাল হবেনা কোনদিন সুখ ।

যারা মানুষকে বাসে ভাল হৃদয় মন দিয়া

তাদের কেউ করেনা অপমান অহংকার নিয়া।

যে চিনেনা আসল মানুষ, চিনে চাকচিক্য

সে কোন দিন পাবেনা সুখ দেখাবে শুধু আধিক্য।

যাদের দেখতে বাইরে  কালো করিবা তাদের অবহেলা

খোদা তাআলা সইবেনা এসব বুঝবে বিদায় বেলা ।

হাত পেতে দাও খোদার কাছে আমায় কর ক্ষমা

জীবনে আর করবনা এমন, করবনা কাউকে ঘৃণা ।

কাব্যগ্রন্থঃ মায়ের ভাষা

০৪-০২-২০১৩ ইং

লালবাগ-ঢাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published.